সমবায়ভিত্তিক সমাজ গঠনে সততার সহিত দায়িত্ব পালন করতে হবে, এমপি আব্দুল মজিদ খান

বন্যা দাস, নিজস্ব প্রতিনিধি : হবিগঞ্জ-২ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের বেসরকারি সদস্যদের বিল ও সিদ্ধান্ত প্রস্তাব সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি জননেতা  আলহাজ্ব এডভোকেট মোঃ আব্দুল মজিদ খান বলেছেন, দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ও স্বনির্ভরতা অর্জনে সমবায়ের গুরুত্ব অপরিসীম। শতাব্দী প্রাচীন এ আন্দোলন বাংলাদেশের সর্বস্তরের মানুষের মধ্যে সমবায়ের চেতনাকে প্রবল ও অর্থবহ করে তুলেছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আজন্ম লালিত স্বপ্ন ছিল ক্ষুধা, দারিদ্র্য ও শোষণমুক্ত সোনার বাংলাদেশ বিনির্মাণ করা। তিনি দরিদ্র-সুবিধাবঞ্চিত মানুষের ভাগ্যন্নোয়নে গণমুখী সমবায় আন্দোলনের স্বপ্ন দেখেছিলেন। সমবায়ভিত্তিক সমাজ গঠনে সবাইকে সততা, নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার সাথে দায়িত্ব পালন করতে হবে। সমবায়ের ধর্মবানী ধারণ ও লালন করে দেশকে এগিয়ে নিতে হবে। তাহলেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর লালিত স্বপ্ন বাস্তবায়ন হবে।

“বঙ্গবন্ধুর দর্শন সমবায়ে উন্নয়ন ” এ প্রতিবাদ্যকে সামনে রেখে  শনিবার ৭ নভেম্বর সকালে উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে হবিগঞ্জের  বানিয়াচং উপজেলা প্রশাসন এবং  ও সমবায় কার্যালয় কতৃক আয়োজিত জাতীয় সমবায় দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি আব্দুল মজিদ খান উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাসুদ রানার সভাপতিত্বে উক্ত সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবুল কাশেম চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান ফারুক আমিন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হাসিনা আক্তার ও স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা সমবায় অফিসার সৈয়দ হোসেন। সকাল ১০ টায় জাতীয় পতাকা ও সমবায় পতাকা উত্তোলন করে অনুষ্ঠানের সূচনা করেন এডভোকেট আব্দুল মজিদ খান এমপি।

সভায় আরো বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক আবুল হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহজাহান মিয়া, উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাহিবুর রহমান, উপজেলা সেচ্ছা সেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু আশফাক চৌধুরী বাবু, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এ জেড উজ্জ্বল, সাধারণ সম্পাদক রফিকুল আলম চৌধুরী রিপন ও বিভিন্ন সমবায় সমিতির নেতৃবৃন্দ প্রমুখ। উপস্থিত ছিলেন প্রেসক্লাব সভাপতি মোশাহেদ মিয়া, রিপোর্টার্র্স ইউনিটির সভাপতি জীবন আহমেদ লিটন সেক্রেটারী রিপন দেব ও অফিস ষ্টাফ। এছাড়াও উপজেলার সমবায় সমিতি লিমিটেডের সভাপতি-সেক্রেটারী ও অসংখ্য সদস্যবৃন্দ এবং বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ।

এডভোকেট আব্দুল মজিদ খান তার বক্তৃতায় বলেন সমবায়ই শক্তি সমবায়ই মুক্তি’ স্লোগান সামনে রেখে ২ নভেম্বর পালিত হলো ৪৯তম জাতীয় সমবায় দিবস। এ দেশের উন্নতিতে সমবায় সমিতি ব্যাপকভাবে অবদান রাখতে পারে। এর মাধ্যমে বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষ এক হয়ে একটি চক্রে আবদ্ধ হতে পারে। এর প্রতিটি সদস্যের ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র সঞ্চয় এক করে একটি বড় মূলধন তৈরি করা যেতে পারে। এই মূলধন দ্বারা সমিতির সদস্যরা কোনো বড় কার্য সম্পাদন করতে পারবেন। এখানকার সদস্যদের অবশ্যই নিবেদিতপ্রাণ হতে হবে। সমিতিতে সঞ্চয় ঠিকমতো দিতে হবে এবং বিভিন্ন গঠনমূলক আলোচনায় অংশগ্রহণ নিতে হবে। যেসব সদস্যের প্রকৃতই ঋণ দরকার, তাঁদের ঋণ দিতে হবে এবং যাঁরা ঋণ নেবেন, তাঁদের সঠিক সময়ে ঋণের কিস্তি ফেরত দিতে হবে। যারা সঠিকভাবে শিক্ষা অর্জন করতে পারছে না, তাদের যথাসাধ্য আর্থিকভাবে সহায়তা করতে হবে। সমবায় সমিতির প্রত্যেক সদস্যের মতামত গুরুত্ব দিতে হবে এবং মুক্ত আলোচনার ব্যবস্থা করতে হবে। সবার মতামতের ওপর ভিত্তি করে একটি গঠনমূলক সিদ্ধান্তে পৌঁছতে হবে। সঞ্চয়ের টাকা অত্যন্ত সতর্কতার সঙ্গে বিনিয়োগ করতে হবে। কারণ, সঠিক বিনিয়োগ সমিতির উন্নতিতে সহায়ক হবে।

সমবায় সমিতি যেমন সদস্যদের কল্যাণের জন্য কাজ করবে, ঠিক একইভাবে এর সদস্যদেরও সমিতির প্রতি সম্মান ও শ্রদ্ধাবোধ থাকতে হবে এবং সমিতির উন্নতিতে অবদান রাখতে হবে।

 

প্রতিটি সমবায় সমিতির সঠিক কর্মপন্থা ও নীতিমালা থাকতে হবে। এগুলো করতে হবে দেশ ও দশের সার্বিক কল্যাণের কথা মাথায় রেখে। যত বেশি সমবায় সমিতি হবে, ততই এই দেশের মানুষ সত্যবদ্ধ হবে। মনে রাখতে হবে, একটি ভালো সমিতি পুরো একটি এলাকার উন্নতিতে অবদান রাখতে পারে, যেটার প্রভাব পড়বে রাষ্ট্রের ওপর। প্রকৃতপক্ষে সমবায়ের মাধ্যমে সামাজিক নিরাপত্তা অর্জন করা সম্ভব।

 

আরও পড়ুন...

নাগুড়ায় কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের দাবীতে পুকড়া ও সুবিদপুর ইউনিয়নের মানববন্ধনে জনসমুদ্র

অনলাইন ডেস্ক, দৈনিক অনুসন্ধান

ঈদ উপলক্ষ্যে ২ হাজার প্যাকেট খাবার নিয়ে ঘরে ঘরে ছুটছেন আ’লীগ নেতা রুয়েল

বগুড়ার সাংবাদিক রফিক মুক্তার দাফন সম্পন্ন