এমসি কলেজে তরুণী ধর্ষণ : পরিচয় মিলেছে শায়েস্তাগঞ্জের লম্পট রনির

ষ্টাফ রিপোর্টার : সিলেটের এমসি কলেজে তরুণী গণধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত ৬ ছাত্রলীগ নেতার পরিচয় মিলেছে। এর মাঝে একজন হবিগঞ্জ জেলার শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার বাগুনিপাড়া গ্রামের বাসিন্দা শাহ জাহাঙ্গীর মিয়ার পুত্র শাহ মাহবুবুর রহমান রনি।

যদিও দীর্ঘদিন কলেজে কমিটি না থাকায় সে সহ অন্যদের কোন পদ-পদবী নেই। কিন্ত কলেজের রাজনীতি এসব নেতারা সক্রিয় ছিলেন।

রনি শায়েস্তাগঞ্জ একাডেমী থেকে এসএসএসি পাশ করে শাবিপ্রবিতে অর্নাস করে এমসি কলেজে স্নাতকোত্তর করছে। রনি ছোটবেলা থেকেই ছিল উগ্র মেজাজের। এলাকায় এলে ছাত্রলীগের প্রভাব খাটিয়ে দাপিয়ে বেড়াতো ।ঘটনার পর থেকে সেসহ অন্যরা পলাতক আছে। পুলিশ সে সহ তার সহযোগীদের ধরতে অভিযান চালাচ্ছে।

উল্লেখ্য শুক্রবার (২৫ সেপ্টেম্বর) ধর্ষিত তরুণী তার স্বামীকে নিয়ে সিলেটের এমসি কলেজের ঘুরতে যান। এক পর্যায়ে রাত ৮ টার দিকে তরুণীর স্বামী সিগারেট খাওয়ার জন্য এমসি কলেজের গেইটের বাইরে বের হন। এসময় কয়েকজন যুবক তরুণীকে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে যেতে চান। এতে তরুণীর স্বামী প্রতিবাদ করলে তাকে মারধোর শুরু করেন ছাত্রলীগের কর্মীরা। এক পর্যায়ে তরুণী ও তার স্বামীকে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা এমসি কলেজের হোস্টেলে নিয়ে যান। সেখানে স্বামীকে বেঁধে ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী তরুণীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে।

এসময় তাদের সাথে থাকা ৯০ টি মডেলের একটি কারও ছিনিয়ে নিয়ে যান ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। পরে খবর পেয়ে পুলিশ এসে কারটি তাদের জিম্মায় নেয়। এবং তরুণীকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসি সেন্টারে প্রেরণ করে।

আরও পড়ুন...

নবীগঞ্জে ইমাম ও তার স্ত্রীকে ধারালো অস্ত্রে কুপিয়ে ৫০ হাজার টাকা ছিনতাই

হাজারো মানুষের উপস্থিতিতে আ’লীগ নেতা শাহজাহান মিয়ার চেয়ারম্যান প্রার্থীতা ঘোষণা

অনলাইন ডেস্ক, দৈনিক অনুসন্ধান

ধর্ষণের প্রতিবাদে বানিয়াচং যৌন নির্যাতন প্রতিরোধ মঞ্চ’র মানববন্ধন

অনলাইন ডেস্ক, দৈনিক অনুসন্ধান